ঢাকা ০২:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম
চাঁদপুর পৌর শহীদ জাবেদ স্কুল এন্ড কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পূর্ণমিলনী কার্যক্রমের সূচনা মোল্লাকান্দিতে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে বাড়ি-ঘর লুট ও ভাঙচুরের অভিযোগ শ্রীনগরে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি পালন শ্রীনগরে চাঁদাবাজির মামলায় ইউপি সদস্য গ্রেফতার মুন্সীগঞ্জে জমির মালিকানা নিয়ে ধুম্রজাল পদ্মা সেতুতে ছয় মাসে আয় ৩৯৫ কোটি করোনায় চিকিৎসাহীন কেউ মারা গেলে তা ফৌজদারী অপরাধ : হাইকোর্ট আত্মহত্যা করেছেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত ‘রেড জোন’ হিসেবে চিহ্নিত যেসব এলাকা… ধর্ম পালনের জন্য মিডিয়াকে ‘গুডবাই’ জানালেন সুজানা!

ফলাফলে সন্তুষ্ট নয় ২ লাখ ৩৮ হাজারের বেশি পরীক্ষার্থী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:২৩:২৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুন ২০২০ ২৩ বার পড়া হয়েছে
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

সদ্য প্রকাশিত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলে সন্তুষ্ট হতে পারেনি দেশের ২ লাখ ৩৮ হাজার ৪৭১ জন পরীক্ষার্থী।তাই খাতা চ্যালেঞ্জ করে পুনঃনিরীক্ষার জন্য আবেদন করেছেন তারা। চ্যালেঞ্জ করা খাতার সংখ্যা মোট ৪ লাখ ৪১ হাজার ৯১৯টি। এর মধ্যে এসএসসি পরীক্ষায় ৩ লাখ ৯৫ হাজার ৮৯৮টি, দাখিলের ২৮ হাজার ৪৮৪টি এবং এসএসসি ভোকেশনালের ১৭ হাজার ৫৩৭টি খাতা রয়েছে।আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

৩১ মে ফল প্রকাশের পরের দিন ১ জুন থেকে গত ৭ জুন ছিল ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদনের সুযোগ। গত বছর ফল পুনঃনিরীক্ষণের জন্য আবেদনের সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ৬৯ হাজার ৯১১টি। সে তুলনায় এ বছর ৮০ হাজারেরও বেশি আবেদন বেড়েছে। এ খাতে প্রতিবছর বোর্ডগুলো কোটি কোটি টাকা আয় করে। এ বছর ১১টি শিক্ষা বোর্ডের এ খাতে আয় হয়েছে ২ কোটি ৯৮ লাখ ৮ হাজার ৮৭৫ টাকা। পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করা প্রতিটি বিষয়ে বোর্ডগুলো ১২৫ টাকা করে নেয়। শিক্ষার্থীরা ফল চ্যালেঞ্জ করে আবেদন করলেও নতুন করে উত্তরপত্র মূল্যায়নের কোনও সুযোগ নেই। শুধুমাত্র পুনঃনিরীক্ষা করা হয়।

এ ব্যাপারে আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মু. জিয়াউল হক গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এবার ২০ লাখ শিক্ষার্থীর মধ্যে মাত্র ২ শতাংশ আবেদন করেছেন, এটা অস্বাভাবিক নয়। নিয়ম অনুযায়ী এসব খাতা নতুনভাবে নিরীক্ষা করা হবে। পুনঃনিরীক্ষণে দায়িত্বে অবহেলা চিহ্নিত হলে পরীক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আন্তঃশিক্ষা শিক্ষা বোর্ডের তথ্যমতে, এ বছর ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ৫৯ হাজার ৭৯০ জন, চট্টগ্রাম বোর্ডে ২০ হাজার ৫৫০ জন, রাজশাহী বোর্ডে ২০ হাজার ৪১৩ জন, বরিশাল বোর্ডে ১০ হাজার ৫০ জন, সিলেট বোর্ডে ১১ হাজার ৮৭৪ জন, কুমিল্লা বোর্ডে ১৭ হাজার ৬৭৭ জন,দিনাজপুর বোর্ডে ১৭ হাজার ৮৮৭ জন, ময়মনসিংহ বোর্ডে ৩১ হাজার ৩৩১টি আবেদন, মাদ্রাসা বোর্ডে ১৪ হাজার ৭০৭ জন ও কারিগরি বোর্ডে ১৭ হাজার ৫৩৭টি আবেদন করেছেন শিক্ষার্থীরা।

এমআই

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ফলাফলে সন্তুষ্ট নয় ২ লাখ ৩৮ হাজারের বেশি পরীক্ষার্থী

আপডেট সময় : ০৫:২৩:২৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুন ২০২০

সদ্য প্রকাশিত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলে সন্তুষ্ট হতে পারেনি দেশের ২ লাখ ৩৮ হাজার ৪৭১ জন পরীক্ষার্থী।তাই খাতা চ্যালেঞ্জ করে পুনঃনিরীক্ষার জন্য আবেদন করেছেন তারা। চ্যালেঞ্জ করা খাতার সংখ্যা মোট ৪ লাখ ৪১ হাজার ৯১৯টি। এর মধ্যে এসএসসি পরীক্ষায় ৩ লাখ ৯৫ হাজার ৮৯৮টি, দাখিলের ২৮ হাজার ৪৮৪টি এবং এসএসসি ভোকেশনালের ১৭ হাজার ৫৩৭টি খাতা রয়েছে।আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

৩১ মে ফল প্রকাশের পরের দিন ১ জুন থেকে গত ৭ জুন ছিল ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদনের সুযোগ। গত বছর ফল পুনঃনিরীক্ষণের জন্য আবেদনের সংখ্যা ছিল ৩ লাখ ৬৯ হাজার ৯১১টি। সে তুলনায় এ বছর ৮০ হাজারেরও বেশি আবেদন বেড়েছে। এ খাতে প্রতিবছর বোর্ডগুলো কোটি কোটি টাকা আয় করে। এ বছর ১১টি শিক্ষা বোর্ডের এ খাতে আয় হয়েছে ২ কোটি ৯৮ লাখ ৮ হাজার ৮৭৫ টাকা। পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করা প্রতিটি বিষয়ে বোর্ডগুলো ১২৫ টাকা করে নেয়। শিক্ষার্থীরা ফল চ্যালেঞ্জ করে আবেদন করলেও নতুন করে উত্তরপত্র মূল্যায়নের কোনও সুযোগ নেই। শুধুমাত্র পুনঃনিরীক্ষা করা হয়।

এ ব্যাপারে আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয় সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মু. জিয়াউল হক গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এবার ২০ লাখ শিক্ষার্থীর মধ্যে মাত্র ২ শতাংশ আবেদন করেছেন, এটা অস্বাভাবিক নয়। নিয়ম অনুযায়ী এসব খাতা নতুনভাবে নিরীক্ষা করা হবে। পুনঃনিরীক্ষণে দায়িত্বে অবহেলা চিহ্নিত হলে পরীক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আন্তঃশিক্ষা শিক্ষা বোর্ডের তথ্যমতে, এ বছর ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ৫৯ হাজার ৭৯০ জন, চট্টগ্রাম বোর্ডে ২০ হাজার ৫৫০ জন, রাজশাহী বোর্ডে ২০ হাজার ৪১৩ জন, বরিশাল বোর্ডে ১০ হাজার ৫০ জন, সিলেট বোর্ডে ১১ হাজার ৮৭৪ জন, কুমিল্লা বোর্ডে ১৭ হাজার ৬৭৭ জন,দিনাজপুর বোর্ডে ১৭ হাজার ৮৮৭ জন, ময়মনসিংহ বোর্ডে ৩১ হাজার ৩৩১টি আবেদন, মাদ্রাসা বোর্ডে ১৪ হাজার ৭০৭ জন ও কারিগরি বোর্ডে ১৭ হাজার ৫৩৭টি আবেদন করেছেন শিক্ষার্থীরা।

এমআই